Main Menu

MEO

মিলিটারী এষ্টেটস্ অফিসঃ

প্রতিরক্ষা বিভাগের প্রয়োজনে ভূমি অধিগ্রহণ, অধিগ্রহণকৃত ভূমির ব্যবস্থাপনা, রেকর্ড সংরক্ষণ, ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ ইত্যাদি কাজ নির্বাহ করা মিলিটারী এষ্টেটস্ অফিসারের মুখ্য কাজ। উলেস্নখিত কার্য সম্পাদন কালে সিএলএ রুলস ১৯৩৭ এবং সিএলএ রুলস ১৯৪৪ এর বিধি-বিধানসহ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ও সামরিক ভূমি ও সেনানিবাস অধিদপ্তর কর্তৃক প্রনীত নীতিমালা/দিক নির্দেশনা অনুসরণ করা হয়। সেনানিবাস ছাড়াও দেশের অন্যান্য স্থানে অনেক সামরিক জমি আছে। বর্তমানে সামরিক জমির পরিমান কম/বেশী ৪৩,৯৯০.৩৬ একর। এ ছাড়া ৪১,৭৮৭.১২ একর জমি অধিগ্রহণ/হস্তান্তরের প্রস্তাব প্রক্রিয়াধীন আছে।

অধিগ্রহণ কার্যক্রমঃ

সার্কেল অধিগ্রহণ কেসের সংখ্যা জমির পরিমাণ
ঢাকা ২২টি ১৭১৪.২৬ একর
চট্টগ্রাম ৩০টি ৩৯৮৬০.০৩ একর
বগুড়া ০৮টি ২১২.৮৪ একর

মিলিটারী এষ্টেটস অফিসের কার্যাবলীঃ

ক) জমি অধিগ্রহণ ও অধিগ্রহণকৃত জমির রেকর্ড সংরক্ষণঃ- জমি অধিগ্রহণের মূল কাজটি সংশিস্নষ্ট জেলা প্রশাসকের এল, এ (ল্যান্ড একুইজিশান) শাখা কর্তৃক "১৯৮২ সালের স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও হুকুম দখল অধ্যাদেশ" এবং "স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ম্যানুয়্যাল- ১৯৯৭" অনুযায়ী পরিচালিত হয়। এক্ষেত্রে এমইও'র দপ্তর উল্লেখিত আইনের আওতায় প্রত্যাশী সংস্থার দায়িত্ব পালন করে থাকে।

খ) সীমানা নির্ধারণ সংক্রান্ত কাজঃ- এমইও'র নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় বিদ্যমান সেনানিবাস/সামরিক জমি সমূহের সীমানা সংলগ্ন এলাকায় ব্যক্তি মালিকানাধীন জমির সাথে প্রায়শঃই সীমানা সংক্রানত্দ জটিলতা হয়ে থাকে।

গ) জিএলআরওএমএলআর সংরক্ষণঃ- সিএলএ এবং এসিআর রম্নলের বিধান মোতাবেক এমইও কর্তৃক জেনারেল ল্যান্ড রেজিষ্ট্রার (জিএলআর) এবং মিলিটারী ল্যান্ড রেজিষ্ট্রার (এমএলআর) প্রস্তুত ও রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়ে থাকে।

ঘ) মামলা পরিচালনা সংক্রান্ত কাজঃ- এমইও'র আওতাধীন সেনানিবাস/সামরিক জমি নিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তি/ প্রতিষ্ঠান/সংস্থা কর্তৃক উচ্চতর ও নিম্ন আদালতে মামলা মোকদ্দমা দায়ের করা হয়।

ঙ) অন্যান্য কাজঃ- এমইও'র দপ্তর কর্তৃক বর্ণিত কার্যাবলী ছাড়াও প্রতিরক্ষা বিভাগের চাহিদা মোতাবেক বাড়ী ভাড়া করণ, বাড়ী ভাড়া পরিশোধ করণ ও প্রতিরক্ষা বিভাগীয় জমির ভূমি উন্নয়নের কর পরিশোধ করা হয়ে থাকে। এতদ্ব্যতীত সামরিক জমিতে বিদ্যমান গাছপালা ব্যবহারকারী সংস্থা/ইউনিটের চাহিদা মোতাবেক নিলাম/ দরপত্রের মাধ্যমে বিক্রয় করা হয়।